সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক | Sonali Bank Balance Check 2023

সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক

সোনালী ব্যাংক বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক ব্যাংক। তাই সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার জন্য বহু গ্রাহক ব্যাংকের বিভিন্ন শাখায় ভীড় করে। অনেকে আবার অনলাইনের মাধ্যমে ব্যাংক একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করে থাকে। কেউ কেউ আবার সোনালী ব্যাংকের হটলাইন নাম্বারে ফোন করে তাদের ব্যালেন্স চেক করে থাকে।

সোনালী ব্যাংকের বিভিন্ন শাখা কিংবা অনলাইনের মাধ্যমে হোক গ্রাহকেরা তাদের একাউন্টে বর্তমানে কত টাকা রয়েছে কোনো না কোনো ভাবে শুনে থাকে। মাঝে মাঝে এমনও সোনালী ব্যাংকের গ্রাহক রয়েছেন, যারা জানেই না নিজের ব্যাংক একাউন্টে কত মূলধন সঞ্চিত রয়েছে।

সোনালী ব্যাংকের ব্যালেন্স চেক করার কোনো কোনো প্রক্রিয়া অনেক সময় কষ্টসাধ্য এবং সময় নষ্ট করে থাকে। সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার সকল প্রক্রিয়ার মধ্যে থেকে সবাইকে সব প্রক্রিয়া ভালো নাও লাগতে পারে। কারোও কাছে কোনো প্রসেস ভালো লাগতে পারে আবার অন্য কারোও কাছে সেই প্রসেস অনেক বিরক্তিকর মনে হতে পারে

এই অনুচ্ছেদের মাধ্যমে আমরা জানবো কিভাবে সোনালী ব্যাংকের একজন গ্রাহক নির্ভেজাল ভাবে তাদের ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার নিয়মাবলী

সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার অনেক উপায় রয়েছে। কিন্তু এতগুলো উপায়ের মধ্যে থেকে সবচেয়ে সবচেয়ে সহজ উপায় গুলো এই অনুচ্ছেদ বর্ণনা করবো।

প্রতিটি ধাপ ব্যবহার করে আপনারা সোনালী ব্যাংক থেকে খুব সহজেই টাকা উত্তলোন করতে পারবেন। উপরে উল্লেখিত প্রতিটি ধাপের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে হলে কিছু বিষয় মনে রাখতে হবে সম্পর্কে নিচে বর্ণনা করা হচ্ছে।

১। ব্যাংকের মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক একাউন্টে ব্যালেন্স চেক

আপনি যদি সোনালী ব্যাংকের একজন গ্রাহক হয়ে থাকেন, তাহলে আপনি যে শাখায় আপনার একাউন্ট তৈরি করেছেন সে অফিসে আপনার একটা থাকবে। আপনি যদি সেভিং একাউন্ট চালু করে থাকেন, তাহলে আপনার একাউন্টে বর্তমানে কত টাকা আছে সে বিষয়ে জানার আগ্রহ থাকতেই পারে।

আপনার যদি সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে চান, তাহলে আপনাকে আপনার নিকটে অবস্থিত সব শাখায় গেলে হবেনা। আপনি সোনালী ব্যাংকের যে শাখায় ব্যাংক একাউন্ট তৈরি করেছেন সে ব্যাংকে আপনাকে যেতে হবে। কেননা, আপনার ব্যাংক একাউন্টের সকল তথ্য উক্ত শাখায় পেয়ে যাবেন।

যেহেতু আপনি আপনার ব্যাংকের একাউন্টে কত টাকা রয়েছে তা চেক করতে চান, তাহলে আপনাকে উক্ত ব্যাংকের প্রতিনিধির সাথে কথা বলে আপনার ব্যাংক একাউন্ট নম্বর এবং দরকারী সকল তথ্য প্রদান করলে আপনি আপনার ব্যাংকে কত টাকা রয়েছে তা চেক করতে পারবেন।

২। SMS এর মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক একাউন্টে ব্যালেন্স চেক

SMS এর মাধ্যমে ব্যাংক একাউন্ট চেক করার প্রক্রিয়াটি সবচেয়ে সহজ। কেননা, SMS মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার জন্য আপনাকে ব্যাংকের শাখা অফিসে যেতে হবেনা। ফলে আপনার সময় এবং অর্থ দুইটিই সঞ্চয় হচ্ছে। আপনি যদি SMS এর মাধ্যমে আপনার ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে চান, তাহলে আপনাকে নিম্নো উপায়ে ব্যালেন্স চেক করতে হবে।

ক) সিঙ্গেল একাউন্টের ক্ষেত্রেঃ ব্যালেন্স চেক করার জন্য আপনাকে নিচের SMS ফরম্যাট অনুসরণ করতে হবে। একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, আপনি যে মোবাইল নম্বর দিয়ে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট করেছেন, সে মোবাইল নম্বর দিয়ে SMS পাঠাতে হবে

 

SBL <Space> BAL Send to 26969

খ) মাল্টিপল একাউন্টের ক্ষেত্রঃ ব্যালেন্স চেক করার জন্য আপনাকে নিচের SMS ফরম্যাট অনুসরণ করতে হবে। একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, আপনি যে মোবাইল নম্বর দিয়ে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট করেছেন, সে মোবাইল নম্বর দিয়ে SMS পাঠাতে হবে ।

SBL <Space> BAL1 Send to 26969 এবং SBL <Space> BAL2 Send to 26969

যখন আপনার অনেক গুলো একাউন্ট থাকে, সেক্ষেত্রে প্রতিটি একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করার ক্ষেত্রে উপরিউক্ত ফরম্যাটের ক্ষেত্রে শুধু BAL3, BAL4, BAL5 ইত্যাদি লিখে প্রতিটি ব্যাংকের ব্যালেন্স চেক করতে হবে।

সর্বশেষ পাঁচটি লেনদেন চেক

সর্বশেষ পাঁচটি আপনার ব্যাংক একাউন্টের লেনদেন সম্পর্কে জানতে হলে আপনাকে নিচের ফরম্যাটের মাধ্যমে আপনার ব্যাংক একাউন্টে দেওয়া নম্বর দিয়ে সর্বশেষ পাঁচটি লেনদেন সম্পর্কে জানতে পারবেন।

ক) সিঙ্গেল একাউন্টের ক্ষেত্রেঃ সর্বশেষ পাঁচটি আপনার ব্যাংক একাউন্টের লেনদেন চেক করার জন্য আপনাকে নিচের SMS ফরম্যাট অনুসরণ করতে হবে। একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, আপনি যে মোবাইল নম্বর দিয়ে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট করেছেন, সে মোবাইল নম্বর দিয়ে SMS পাঠাতে হবে

SBL <Space> STM Send to 26969

খ) মাল্টিপল একাউন্টের ক্ষেত্রঃ সর্বশেষ পাঁচটি আপনার অনেকগুলো ব্যাংক একাউন্ট থাকলে সেক্ষেত্রে লেনদেন চেক করার জন্য আপনাকে নিচের SMS ফরম্যাট অনুসরণ করতে হবে। একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, আপনি যে মোবাইল নম্বর দিয়ে সোনালী ব্যাংক একাউন্ট করেছেন, সে মোবাইল নম্বর দিয়ে SMS পাঠাতে হবে ।

SBL <Space> STM1 Send to 26969 এবং SBL <Space> STM1 Send to 26969

SMS এর মাধ্যমে ব্যালেন্স চেক অথবা সর্বশেষ পাঁচটি লেনদেন জানতে হলে যে মোবাইল নম্বর দিয়ে ব্যাংক একাউন্ট / ব্যাংক একাউন্ট গুলো তৈরি করেছেন, সেই মোবাইল দিয়ে SMS না পাঠালে আপনি এই সেবাগুলো পাবেন না।

SMS সার্ভিস চার্জ

SMS মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার জন্য আপনাকে প্রতিবছর ৫০+ ভ্যাট টাকা করে প্রদান করতে হবে। অন্যথায় ব্যাংক এই সেবাটি আপনাকে দিবে না। যেহেতু ব্যাংকে আপনার সকল গুচ্ছিত টাকা থাকে, তাই এই সার্ভিসটি চালু করে নেওয়া উচিত।

৩। ই-ওয়ালেটে মাধ্যমে সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক

ই-ওয়ালেটের মাধ্যমে ব্যালেন্স চেক করার জন্য আপনাকে প্রথমে ই-ওয়ালেট একাউন্ট তৈরি করতে হবে। কিভাবে ই-ওয়ালেট একাউন্ট তৈরি করতে সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে নিচের একটা আর্টিকেলে। আপনি চাইলে ই-ওয়ালেট কিভাবে খুলতে হয় সে বিষয়ে জানার জন্য নিচের লিংকে দেওয়া আর্টকেলটি পড়ে নিতে পারেন।

সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক

উপরে উল্লেখিত ছবি অনুযায়ী ই-ওয়ালেটের মাধ্যমে আপনার সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন। আপনাদের যে একাউন্টের ব্যালেন্স দেখতে চাচ্ছেন, সেই একাউন্ট নম্বর এবং মোবাইল নম্বর দিয়ে লগইন করতে হবে। তারপর, ট্রানজেকশন অপশনে ক্লিক করলে আপনার একাউন্টের জন্য একটি ব্যালেন্স বাটন পাবেন। সেখানে ক্লিক করলে আপনি সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়মাবলি

সোনালী ব্যাংকে ব্যালেন্স চেক করতে চাইলে সবার আগে যে বিষয়টি কথা আসে, তা হচ্ছে সোনালী ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট খোলা। আপনার যদি কোনো একাউন্ট না থাকে, তাহলে আপনি কোথাকার ব্যালেন্স চেক করবেন। তাই আপনাদেরকে অবশ্যই সোনালী ব্যাংকে একটি একাউন্ট খোলা থাকতে হবে।

আপনি ব্যাংকের যেকোনো লেনদেন করতে চাইলে সবার আগে আপনাদের একটি ব্যাংক একাউন্ট লাগবে। একটি ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য কিছু দরকারি কাগজপত্র লাগে। আপনি যদি সোনালী ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট করতে চান, তাহলে আপনাকে বাংলাদেশী নাগরিক হতে হবে।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে?

যেকোনো ব্যাংক একাউন্টের সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার সময় আমাদের এটা জেনে রাখা ভালো একটি ব্যাংক একাউন্ট করতে হলে আপনাদের কি কি দরকারি কাগজ লাগবে। ব্যাংক একাউন্ট করতে যে সকল দরকারি কাগজপত্র লাগবে তার মধ্যে সবচেয়ে দরকারি হচ্ছে বাংলাদেশের জাতীয় পরিচয়পত্র। নিচে সোনালী ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট করার জন্য যা যা লাগে সেগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো-

১। জাতীয় পরিচয়পত্র

সোনালী ব্যাংকে ব্যাংক একাউন্ট করার জন্য আপনাকে দুইটি জাতীয় পরিচয়পত্র লাগবে। একটি আপনার নিজের অর্থাৎ, যার নামে ব্যাংক একাউন্ট খোলা হবে এবং আরেকটি যিনি উক্ত একাউন্টের নমিনি। আপনি যখন ব্যাংক একাউন্ট তৈরি করবেন, তখন আপনাকে আপনার নমিনিসহ সোনালী ব্যাংকের নিকটবর্তী শাখায় যেতে হবে। আপনার ও আপনার নমিনির জাতীয় পরিচয়পত্রের অবশ্যই ২-৩ কপি সাথে নিয়ে যাবেন।

২। সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি

সোনালী ব্যাংকে একাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনার এবং নমিনির সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি সাথে নিয়ে আসবেন। একটি ব্যাংক একাউন্ট খুলতে সদ্য তোলা রঙিন ছবি লাগবে। আপনি যদি সাদা কালো ছবি তুলে নিয়ে আসেন, তাহলে সেই ছবি গ্রহণযোগ্য হবে না।

৩।  আবেদন ফরম

আপনি যখন আপনার নমিনি ও আপনার সকল কাগজপত্র নিয়ে নিকটস্থ সোনালী ব্যাংকের শাখা যাবেন, তখন সেখানে কোনো কর্মকর্তা বা কর্মচারীকে ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য যে আবেদন ফরম তা চাইবেন। একটি ব্যাংক একাউন্ট খোলার জন্য আবেদন ফরম খুব জরুরী। আপনার সকল তথ্য উক্ত আবেদন ফরমে লেখা থাকে। সেখানে আপনার নাম, জন্ম তারিখ, ছবি, ঠিকানা, নমিনির সাথে আপনার সম্পর্ক, আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর এবং নমিনির নাম, জন্ম তারিখ, ছবি, ঠিকানা ইত্যাদি উল্লেখ থাকে।

সোনালী ব্যাংক একাউন্ট খোলার নিয়ম

সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করার সময় আমাদের এটাও জানা উচিত একটি ব্যাংক একাউন্ট কীভাবে খুলতে হয়। এই প্রক্রিয়াটি জানা থাকলে আপনি অপরের দরকারে আসতে পারেন।

আপনি ও আপনার নমিনিকে নিয়ে উপরের ব্যাংক একাউন্ট খুলতে সকল দরকারি কাগজ নিয়ে নিকটস্থ সোনালী ব্যাংকের শাখায় গিয়ে সোনালী ব্যাংকের একাউন্ট খুলতে পারবেন। ব্যাংকে যাওয়ার পর আপনি ব্যাংকে কর্মরত যেকোনো কর্মকর্তা অথবা কর্মচারীকে বলে একটি আবেদন ফরম নিবেন।

সেই আবেদন ফরমে আপনার সকল তথ্য নিজে লিখবেন। যদি কোনো কিছু বুজতে বা লিখতে সমস্যা হলে ব্যাংক কর্মকর্তা বলবেন, উনারা আপনাকে অবশ্যই ব্যাংক একাউন্ট খুলতে সাহায্য করবেন।

আবেদন ফরম পূরণ করে জমা দিবেন। কয়েক দিনের মাথায় আপনার ব্যাংক একাউন্ট সক্রিয় হওয়ার পর আপনার মোবাইলে একটি মেসেজ যাবে। মেসেজ গেলেই আপনি বুঝে যাবেন আপনার ব্যাংক একাউন্টটি ব্যবহারের জন্য সক্রিয় হয়ে গেছে।

ব্যাংক একাউন্টটি সক্রিয় হওয়ার পর আপনি এর সাহায্যে যেকোনো লেনদেন করতে পারবেন এবং অনলাইন ও অ্যাপের মাধ্যমে আপনি সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ পাসপোর্ট চেক ২০২৪ | ই-পাসপোর্ট চেক করার নিয়ম | E-Passport Check

শেষকথা

আপনি একজন সোনালী ব্যাংকের গ্রাহক হওয়ায়, আপনার কথা প্রতিটি শাখার প্রতিনিধি আপনার সেবায় নিয়োজিত থাকেন। তাই আপনি যদি ব্যাংকে গিয়ে আপনার একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করেন, তাতেও আপনার কোনো সমস্যা হবে। এই ডিজিটাল যুগে আপনি তাই মেসেজের সিস্টেমটি চালু করে রাখতে পারেন, যাতে আপনি যেকোনো সময় যেকোন জায়গা থেকে আপনার ব্যাংকের অবস্থা সম্পর্কে জানতে পারেন।

2 thoughts on “সোনালী ব্যাংক ব্যালেন্স চেক | Sonali Bank Balance Check 2023”

    • অবশ্যই আপনি উপরের সকল তথ্য পড়লে বুঝতে পারবেন কীভাবে আপনি আপনার ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন।

      Reply

Leave a Comment